শিক্ষা বার্তা

বাউবিতে প্রযুক্তিবিষয়ক প্রশিক্ষণ

নানা সমস্যায় পড়ে অনেকেরই অসময়ে পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যায়। কিংবা কাজের ব্যস্ততায় বা অর্থের অভাবে অনেক সময় প্রয়োজনীয় পেশাগত প্রশিক্ষণ নেওয়া সম্ভব হয় না। এ ধরনের লোকজনের জন্য দূরশিক্ষণ শিক্ষার মাধ্যমে কম খরচে সনদ অর্জনের সুযোগ করে দিয়েছে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি)। তেমনি একটি বিষয় ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার সায়েন্স অ্যাপলিকেশন (ডিসিএসএ)। প্রশিক্ষণের মেয়াদ এক বছর ছয় মাস। কম্পিউটার বিষয়ে পেশাগত দক্ষতা বাড়ানোর উদ্দেশ্যে কোর্সটি পরিচালনা করছে বাউবি। ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন আঞ্চলিক কেন্দ্রের মাধ্যমে আবেদনপত্র বিতরণ ও তা জমা নেওয়া শুরু হয়েছে, যা চলবে আগামী ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত।
এক নজরে বাউবি: ১৯৯২ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করে। এখন বাউবিতে ছয়টি স্কুল বা অনুষদের অধীনে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা দেওয়া হয়। বর্তমানে ১২টি আঞ্চলিক কার্যালয়, ৮০টি কো-অর্ডিনেটিং অফিস ও এক হাজার ২৯৬-এর অধিক স্টাডি সেন্টারের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।
আবেদনের যোগ্যতা: ভর্তিচ্ছু প্রার্থীদের ন্যূনতম উচ্চমাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় পাস হতে হবে। তবে উচ্চশিক্ষিত প্রার্থীদেরও আবেদনের সুযোগ আছে। শিক্ষাগত যোগ্যতা, বয়স ও পরীক্ষার ফল বিবেচনা করে প্রশিক্ষণার্থী নির্বাচন করা হবে।
আবেদন করবেন যেভাবে: জনতা ব্যাংকের যেকোনো শাখায় ১০০ টাকা জমা দেওয়ার রসিদ দেখিয়ে বাউবির আঞ্চলিক কেন্দ্র থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে হবে। আবেদনপত্র যে কেন্দ্র থেকে সংগ্রহ করবেন, সে কেন্দ্রেই জমা দিতে হবে। আবেদনপত্রের সঙ্গে পাসপোর্ট আকারের তিন কপি ছবিসহ শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদের সত্যায়িত ফটোকপি ও চারিত্রিক সনদ জমা দিতে হবে।
পড়ার সুযোগ পাবেন: খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিভিন্ন জেলায় অবস্থিত আটটি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে বাউবির এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় বা ইনস্টিটিউটে ৫০ জন করে শিক্ষার্থী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন। এ প্রশিক্ষণে একজন শিক্ষার্থীর সব মিলিয়ে প্রায় ১৩ হাজার টাকা খরচ হবে।
যেসব বিষয়ে পড়ানো হয়: এ প্রসঙ্গে বাউবির স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের অধ্যাপক কে এম রেজানুর রহমান জানান, এখানে একজন শিক্ষার্থীকে মোট তিনটি সেমিস্টারে ১২টি বিষয়ে পড়তে হয়। প্রতি সেমিস্টার ছয় মাস মেয়াদি। যেসব বিষয়ে পড়ানো হয়: বেসিক কম্পিউটার, অফিস অটোমেশন, প্রোগ্রামিং, অফিস প্যাকেজ, ইংরেজি, ডিজিটাল সিস্টেম, অপারেটিং সিস্টেম, ডেটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, মাইক্রো প্রসেসর, কম্পিউটার ট্রাবল স্যুটিং, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক, ডেস্কটপ পাবলিশিং ও প্রকল্প বিষয়ে। পাশাপাশি ব্যবহারিক বিষয়ও জোর দিয়ে শেখানো হয়।
প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে যেখানে: প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট), গাজীপুর, ঢাকা। ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (আইসিটি) ধানমন্ডি, ঢাকা। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি (আইএসআইটি) কারওয়ান বাজার, ঢাকা। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী। চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যায় (চুয়েট), চট্টগ্রাম এবং আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া এবং প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা।
আরও পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণের সুযোগ: বাউবির ছয়টি অনুষদে বিভিন্ন বিষয়ে নিয়মিত পড়াশোনা করা ও প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে।
স্কুল অব এডুকেশন: বাউবির যুগ্ম পরিচালক (তথ্য ও গণসংযোগ) আবুল কাশেম সিকদার জানান, স্কুল অব এডুকেশনের অধীনে সার্টিফিকেট ইন এডুকেশন (সিএড) কোর্স পড়ানো হয়। দেড় বছর মেয়াদি কোর্সটি তিনটি সেমিস্টারে ভাগ করা। ভর্তির যোগ্যতা ন্যূনতম উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পাস হতে হবে। তবে শিক্ষক বা শিক্ষিকাদের ক্ষেত্রে মাধ্যমিক পাস হলেই চলবে। এ ছাড়া বিএড এবং এমএড কোর্সেও পড়ার সুযোগ আছে।
স্কুল অব সোশ্যাল সায়েন্স, হিউম্যানিটিজ অ্যান্ড ল্যাঙ্গুয়েজ: এখানে সার্টিফিকেট ইন ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ প্রফিসিয়েন্সি, সার্টিফিকেট ইন অ্যারাবিক ল্যাঙ্গুয়েজ প্রফিসিয়েন্সি কোর্সে পড়ানো হয়। এ দুটি কোর্সে ভর্তির যোগ্যতা ন্যূনতম মাধ্যমিক বা সমমান পাস। এ ছাড়া ব্যাচেলর অব ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ টিচিং (বেল্ট), বিএ, বিএসএস কোর্সসহ রয়েছে ইতিহাস, দর্শন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, সমাজতত্ত ও ইসলামিক স্টাডিজ বিষয়ে চার বছরের স্নাতক কোর্স।
ওপেন স্কুল: এখানে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক ও বিবিএস-এ পড়ানো হয়।
স্কুল অব বিজনেস: এ শাখায় সার্টিফিকেট ইন ম্যানেজমেন্ট (সিআইএম) ও পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ম্যানেজমেন্ট (পিজিডিএম) কোর্সে পড়ার সুযোগ আছে। সিআইএমের মেয়াদ এক বছর ও ভর্তির যোগ্যতা উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান। পিজিডিএমের মেয়াদ দেড় বছর ও ভর্তির যোগ্যতা স্নাতক পাস। এ ছাড়া বিবিএ, এমবিএ, কমনওয়েলথ এক্সিকিউটিভ এমবিএ, কমনওয়েলথ এক্সিকিউটিভ মাস্টার্স অব পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বিষয়েও ভর্তির সুযোগ আছে।
স্কুল অব অ্যাগ্রিকালচার অ্যান্ড রুরাল ডেভেলপমেন্ট: এখানে ডিপ্লোমা ইন ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট ওয়ার্ক (ডিওয়াইডিডব্লিউ), সার্টিফিকেট ইন লাইভস্টক অ্যান্ড পোলট্রি (সিএলপি) ও সার্টিফিকেট ইন পিসিকালচার অ্যান্ড ফিশ প্রসেসিং (সিপিএফপি) বিষয়ে পড়ানো হয়। ডিওয়াইডিডব্লিউ কোর্সটি দেড় বছর মেয়াদি ও ভর্তির যোগ্যতা স্নাতক পাস। সিএলপি এবং সিপিএফপি কোর্স দুটি ছয় মাস মেয়াদি ও ভর্তির জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা মাধ্যমিক বা সমমান পাস। এ ছাড়া ব্যাচেলর অব অ্যাগ্রিকালচারাল এডুকেশন (বিএএড) কোর্সে পড়ার সুযোগ আছে। তিন বছর মেয়াদি এ কোর্সে ভর্তির যোগ্যতা লাগবে বিজ্ঞান বিভাগে উচ্চমাধ্যমিক বা কৃষি ডিপ্লোমা পাস।
স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি: এখানে ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড অ্যাপলিকেশনে পড়ার সুযোগ আছে। ভর্তির যোগ্যতা উচ্চমাধ্যমিক ও প্রশিক্ষণের মেয়াদ দেড় বছর। এ ছাড়া বিএসসি ইন নার্সিং কোর্সে পড়ানো হয়।
যোগাযোগ: বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর। ফোন: ৯২৯১১০১-৪। আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলো: ৪/ক কলেজ এরিয়া, ধানমন্ডি, ঢাকা ফোন: ৯৬৭৩৬৬৯। চট্টগ্রাম ফোন: ০৩১-৬১৯৬৩৩। সিলেট ফোন: ০৮২১-৭১৯৫২৩। বরিশাল ফোন: ০৪৩১-২১৭৬২৮২। কুমিল্লা ফোন: ০৮১-৭৭৫৫৭। ফরিদপুর ফোন: ০৬৩১-৬২০৮১। বগুড়া ফোন: ০৫১-৬২৭৯৪। যশোর, ফোন: ০৪২১-৬৮৫২৬। রাজশাহী ফোন: ০৭২১-৮০০০০৮। ময়মনসিংহ, ফোন: ০৯১-৬৫২৯৮। রংপুর, ফোন: ০৫২১-৬৩৫৯৩ ও খুলনা, ফোন: ০৪১-৭৩১৭৯৫। দেখতে পারেন ওয়েবসাইট: www.bou.edu.bd
লিখেছেন: জাহিদ হাসান। সূত্র: প্রথম আলো। তারিখ: ২৫-১১-২০১২।

Rate this post

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page